Monday, May 20, 2024
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
Homeবাংলাদেশদুদকের মামলায় সম্রাটের স্থায়ী জামিন

দুদকের মামলায় সম্রাটের স্থায়ী জামিন

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও মানি লন্ডারিংয়ের মামলায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পেয়েছেন।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক মঞ্জুরুল আলম এ আদেশ দেন।

এদিন একই আদালতে এ মামলার চার্জ শুনানির দিন ধার্য ছিল। এদিন তার পক্ষে আইনজীবী চার্জ শুনানির জন্য সময় আবেদন করেন। আদালত আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ৫ মার্চ শুনানির পরবর্তী দিন রেখেছেন।

একইসঙ্গে সম্রাটের আইনজীবী এদিন স্থায়ী জামিনের আবেদন করেন। আদালত সেই আবেদন মঞ্জুর করেন।

সম্রাটের আইনজীবী এহসানুল হক সমাজী এ তথ্য জানান।

গত ২২ আগস্ট একই আদালত সম্রাটের শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে তাকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। আদেশে উল্লেখ ছিল, সম্রাটকে তার জামিনের বন্ড জমা দেয়ার সময় তার পাসপোর্ট আদালতে জমা দিতে হবে।

জামিনের আদেশে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন সম্রাট। এরপর থেকে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

উল্লেখ্য, অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

মামলাটি তদন্ত করে ২০২১ সালের ২৬ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় দুদক। অভিযোগপত্রে তার বিরুদ্ধে ২২২ কোটি ৮৮ লাখ ৬২ হাজার ৪৯৩ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়।

এছাড়াও অভিযোগপত্রে ২১৯ কোটি ৪৮ লাখ ৫৮ হাজার ৫০০ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগ এনে বলা হয়, সম্রাট ওই টাকা পাচার করেছেন। ২০২২ সালের ২২ মার্চ অভিযোগপত্র আমলে নেন আদালত।

র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর কুমিল্লা থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

মামলাটি তদন্ত করে ২০২১ সালের ২৬ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় দুদক। অভিযোগপত্রে তার বিরুদ্ধে ২২২ কোটি ৮৮ লাখ ৬২ হাজার ৪৯৩ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়।

এছাড়াও অভিযোগপত্রে ২১৯ কোটি ৪৮ লাখ ৫৮ হাজার ৫০০ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগ এনে বলা হয়, সম্রাট ওই টাকা পাচার করেছেন। ২০২২ সালের ২২ মার্চ অভিযোগপত্র আমলে নেন আদালত।

র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর কুমিল্লা থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে আটক করা হয়।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments